1. masudkhan89@yahoo.com : admin :
  2. armanchow2016@gmail.com : bbn news : bbn news
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন

২০০ লোকের সামনেই প্রবাসীর স্ত্রী-মেয়েকে জুতা দিয়ে পেটালেন মেম্বার

সাংবাদিক :
  • আপডেট : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ৬৯ সংবাদ দেখেছেন

বিবিএন প্রতিনিধি :   লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মা-মেয়েকে জুতাপেটা করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। রোববার বিকেলে ওই উপজেলার কেরোয়া ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার মো. আরিফুর রহমান এক সালিশ বৈঠকে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে। তবে ভয়ে ওই মেম্বারের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেয়নি ভুক্তভোগী পরিবার। পুলিশ বলছে- লিখিত অভিযোগ দিলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং পুরো পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। ভুক্তভোগী রিনা বেগম ওই ইউনিয়নের উত্তর-পূর্ব কেরোয়া গ্রামের কালা শাহ ফকির বাড়ির সৌদি প্রবাসী আব্বাস উদ্দিনের স্ত্রী। তার মেয়ে স্থানীয় একটি মাদরাসায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। ভুক্তভোগী অভিযোগ করেন, আমাদের বাড়িতে একটি সালিশ বৈঠকে প্রায় দুই শতাধিক লোকের উপস্থিতিতে ইউপি মেম্বার আরিফ আমার ১৭ বছরের মেয়েকে জুতা দিয়ে আঘাত করে। আমি প্রতিবাদ করায় সে আমাকেও জুতা দিয়ে পেটায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক আমার স্বামীকে মোবাইলে জানালে মেম্বার আরিফ মেম্বার উত্তেজিত হয়ে আমার মোবাইলটি কেড়ে নিয়ে ভেঙে ফেলে। তিনি আরো বলেন, ঘটনার পর রাতে পুলিশ এসে আমাদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করায়। এরপর থানায় নিয়ে গেলে ঘটনার বিস্তারিত খুলে বলি। পুলিশ আমাকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছে। সোমবার সকালে থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এরই মধ্যে মেম্বার আরিফ আমাদের বাড়িতে লোক পাঠিয়ে থানায় অভিযোগ না করার জন্য চাপ দেয়। মেম্বারও এসে আমার কাছে ক্ষমা চেয়ে গেছে। আমার স্বামী বিদেশে থাকে, আমি একা বাড়িতে ছোট দুই ছেলে এবং মেয়েকে নিয়ে থাকি। মামলা করলে মেম্বার যদি কোনো ঝামেলা করে সেই ভয়ে থানায় যাইনি।  রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল ঘটনার সততা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে ওই নারী ও তার মেয়েকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। ভুক্তভোগী নারীকে থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি। কিন্তু তিনি থানায় আসেননি। ভুক্তভোগী পরিবারের নিরাপত্তার বিষয়ে তিনি বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে পুরো পরিবারকে সর্বাত্মক নিরাপত্তা দেওয়া হবে। থানা থেকে তাদের খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। মেম্বার হোক বা চেয়ারম্যান- কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। স্থানীয় ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন আগে কেরোয়ার কালা শাহ ফকির বাড়িতে ১৩ বছরের একটি মেয়ের বিয়ের আয়োজন করা হয়। কিন্তু মেয়েটি বিয়েতে রাজি ছিল না। তার অন্য আরেকটি ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। অনুষ্ঠানের আগেরদিন দুপুরে মেয়েটি তার প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যায়। ওই ঘটনার সহযোগী হিসেবে ওই মেয়ের পরিবার প্রবাসী আব্বাস উদ্দিনের মেয়েকে দায়ী করে ইউপি মেম্বার আরিফের কাছে নালিশ করে। রোববার বিকেলে মেম্বার আরিফ তাদের বাড়িতে এসে সালিশ বৈঠক ডাকেন। বৈঠকের এক পর্যায়ে মেম্বার আরিফ তার পায়ের জুতা দিয়ে প্রবাসী আব্বাস উদ্দিনের মেয়েকে আঘাত করেন। সঙ্গে সঙ্গে মেয়েটির মা ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাকেও বেশ কয়েকবার জুতাপেটা করেন আরিফ। পরে উপস্থিত লোকজন আরিফকে থামায়। এ বিষয়ে জানতে ইউপি মেম্বার আরিফুর রহমানের মোবাইল ফোনে কয়েকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেনেনি।

শেয়ার করুন

একই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2021,বিবিএন নিউজ
Developer By Zorex Zira